সম্পর্কহীন সন্তান পেতে ইন্টারনেটের দারস্থ মহিলা, অনলাইনের দৌলতে সম্পূর্ণ হল সন্তান উৎপাদন!

সম্পর্কহীন সন্তান পেতে ইন্টারনেটের দারস্থ মহিলা, অনলাইনের দৌলতে সম্পূর্ণ হল সন্তান উৎপাদন!

মা হওয়া কি মুখের কথা! একজন পুরুষের সাহায্য ছাড়া কখনও মা হওয়া যায় না,এই সব ধারণা এখন অতীত। তবে টেস্ট টিউব,সারোগেসি, আইভিএফ এমন অনেক আধুনিক পদ্ধতির কথা আমরা জানি। কিন্তু “ই – বেবি” র কথা শুনেছেন কি? এবার এমন উপায়ে মা হয়েছেন স্টেফনি টেলর।

৩৩ বছরের স্টেফনির ভারী ইচ্ছে মা হওয়ার। কিন্তু কোনো সঙ্গীর সাহায্যে নয় সম্পূর্ন নিজের জন্য অন্যের সাহচর্য ছাড়া মা হতে চেয়েছিলেন তিনি। বন্ধু বান্ধব,আত্মীয় স্বজন বলেছিলেন কোনো ফার্টিলিটি ক্লিনিকে যেতে। কিন্তু কোনো সেন্টারে যেতে নারাজ ছিলেন স্টেফনি। এমন সময় এক বান্ধবীর পরামর্শ মতো অনলাইনে শুক্রাণু কেনার অ্যাপ ইন্সটল করেন স্টেফনি। সেই অ্যাপের মাধ্যমেই শুক্রাণু বিক্রিতে ইচ্ছুক ব্যক্তির নারী নক্ষত্র জানা যায়। সব জেনে বুঝে কিনেও ফেললেন স্পার্ম। ইউটিউবে পদ্ধতি মত সেই স্পার্ম নিজের শরীরের মধ্যে প্রবেশ করিয়ে ১০ মাস ১০ দিন অপেক্ষা করতেই জন্ম নিল এক ফুটফুটে কন্যা সন্তান।

স্টেফনি-র কন্যার নাম ইডেন। যার অর্থ স্বর্গীয় উদ্যান। যেহেতু অনলাইনেই সন্তান উৎপাদন করেছেন স্টেফনি তাই নেটাগরিক রা বাচ্চাটির নামকরণ করেছেন ই- বেবি। স্টেফনি জানাচ্ছেন,একেবারে প্রথমে যে ফার্টিলিটি ক্লিনিকের কথা ভাবেননি তা নয় তবে খরচের কথা শুনে পিছিয়ে এসেছেন। এক ব্যক্তির শুক্রাণু আবেদনের ২ সপ্তাহের মধ্যেই পৌঁছে যায় স্টেফনির কাছে।

স্টেফনি কেবল মা হতে চাওয়া মেয়েদের জন্য একটা বড় রাস্তা খুলে দিয়েছেন। যারা স্বেচ্ছায় নিজেরাই নিজেদের সন্তানকে জন্ম দেওয়া ও প্রতিপালনের ক্ষমতা রাখে। সিঙ্গেল মাদার তো বটেই তার সঙ্গে ডেয়ারিং মাদার হয়েও উঠতে চান স্টেফনির মত মেয়েরা। এখন স্টেফনি ও তার সন্তান দুজনেই সুস্থ আছেন।