সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে যাবে কলকাতা সহ ভারতের ১২টি শহর, সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে যাবে কলকাতা সহ ভারতের ১২টি শহর, সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য


সম্প্রতি নাসার একটি রিপোর্টে বেশ চিন্তায় পড়ে গেছেন দেশব্যাপী মানুষজন। বিশ্বউষ্ণায়ন এখন সবথেকে বেশি চিন্তার বিষয় গোটা বিশ্ব জুড়ে। আইপিসিসি রিপোর্টে কতই না ভয়াবহ অশনি সংকেত অপেক্ষা করে আছে ভবিষ্যতে বিশ্বের জন্য। আইপিসিসি তথা রাষ্ট্রসংঙ্ঘের আন্তঃমহাদেশীয় প্যানেল তৈরী করে থাকে রিপোর্ট। আইপিসিসির সম্প্রতি বের করা একটি জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত রিপোর্ট অনুযায়ী ভবিষ্যতের বিরাট একটি ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বিশ্ব উষ্ণায়ন এর ফলে সমুদ্রের জলস্তর যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে সেই জলস্তর নিয়েই ভবিষ্যতে চরম ক্ষতির আশঙ্কা হতে পারে বলে জানিয়েছে নাসা। রিপোর্ট অনুযায়ী এই ভবিষ্যদ্বাণী কোন কারণে যদি বাস্তবায়িত হয় তাহলে ২১০০ সালের মধ্যেই ভারতের প্রায় ১২ টি শহর চলে যাবে জলের নীচে।

আরো পড়ুন -  রামায়ণ কল্পকথা নয়! বাস্তবের কুম্ভকর্ণের দেখা মিলল ভারতে

রিপোর্ট বলছে, এই ১২ টি শহরের কোন খুঁজে পাওয়া যাবে না। সমুদ্র সৈকত এর কাছাকাছি এই শহর গুলি জলের নীচে চলে যাবে। কোন রকম চিহ্ন খুঁজে পাওয়া যাবে না। এই ভবিষ্যদ্বাণী সঠিক না হলেও, যে পরিমাণে বিশ্ব উষ্ণায়ন বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে ভবিষ্যতে প্রায় ৩ ফুট করে জলের নীচে নেমে যাবার আশঙ্কা রয়েছে।

আরো পড়ুন -  দু'টাকার পুরোনো কয়েন থাকলে হাতে আসতে পারে কয়েক লক্ষ টাকা, দেখুন বিস্তারিত

সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয়, রিপোর্ট অনুযায়ী এই শহর গুলির তালিকায় সর্বপ্রথম নাম এর মধ্যে রয়েছে ভারতের সবচেয়ে বড় শহর মুম্বই, কোচি, চেন্নাই, বিশাখাপত্তনম। রিপোর্ট অনুযায়ী বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় এশিয়ার সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধির হার অনেকটাই বেশি। এই ধরণের পরিবর্তন আগেও ১০০ বছরে একবার হত। তবে ২০৫০ সালের মধ্যে ৬ – ৯ বছরের মধ্যে একবার হবে।

আরো পড়ুন -  বাড়িতে ট্রাক্টরের ছবি দেওয়া পুরনো ৫ টাকার নোট আছে? বিক্রি করলে পেতে পারেন ৩০ হাজার টাকা

ইতিমধ্যেই হিন্দুকুশ হিমালয় পার্বত্য এলাকায় খুব দ্রুত গতিতে গলে পড়ছে হিমবাহ। এই হিমবাহ গলে পড়ার কারণেই সবথেকে বেশি পরিমাণে ঝুঁকি বেড়ে চলেছে প্রতিনিয়ত। মুম্বই, চেন্নাই, ওখা, ভাবনগর, মার্মাগাও, ম্যাঙ্গালোর, কোচিন, পারাদ্বীপ, বিশাখাপত্তনম এই মুহুর্তে ভীষণ ঝুঁকি পূর্ন অবস্থায় রয়েছে রিপোর্ট অনুযায়ী।