রবিবার থেকে রাজ্যে লকডাউন, একনজরে দেখে নিন কী খোলা আর কী বন্ধ

রবিবার থেকে রাজ্যে লকডাউন, একনজরে দেখে নিন কী খোলা আর কী বন্ধ

রবিবার থেকে আবার নতুন করে শুরু হচ্ছে লকডাউন। মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় আগামী ১৫ দিনের নির্দেশিকা জারি করেছেন। বর্তমানে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এতদিন পর্যন্ত আংশিক লকডাউনের ঘোষণায় কোন কাজ না হওয়ায় সরকারের এই পদক্ষেপ। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে ১৬ ই মে থেকে ৩০ শে মে পর্যন্ত লকডাউন থাকবে রাজ্যে।

লকডাউন এর সাথেই বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সার্ভিস বন্ধ করেছেন রাজ্য সরকার। রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠকে লকডাউন ঘোষণা করেছেন। সাথেই তিনি নতুন নিয়মাবলীর তালিকা প্রকাশ করেছেন। এই নতুন নিয়মাবলী ১৬ ই মে সকাল ৬ টা হইতে ৩০ শে মে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত প্রযোজ্য।

আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক নতুন নিয়মাবলী:
১. রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ ও অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।
২. অত্যাবশ্যকীয় সার্ভিসের অফিস গুলি ছাড়া বাদবাকি সমস্ত সরকারি অফিস বন্ধ থাকবে।
৩. রাজ্যের বাস-অটো এবং মেট্রো পরিষেবা বন্ধ থাকবে। জরুরি অবস্থার জন্য চালু থাকতে পারে ট্যাক্সি পরিষেবা। চিকিৎসা সামগ্রী এবং খাদ্য সামগ্রী পরিবহন করা যেতে পারে ট্রাকের মাধ্যমে।
৪. মুদিখানা দোকান, খুচরা দোকান এবং নিত্য প্রয়োজনীয় কিছু জিনিসের দোকান খোলা থাকবে সকাল ৭ টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত।
৫. বন্ধ থাকবে সুইমিংপুল, শপিং মল এবং রেস্টুরেন্ট।
৬. ই-কমার্স পরিষেবা চালু রাখা হবে।
৭. সকাল ১০ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত মিষ্টির দোকান খোলা থাকবে।
৮. ওষুধ এবং চশমার দোকান বন্ধ করা হবে না।
৯. বিয়ে বাড়ি ও অন্যান্য অনুষ্ঠান বাড়িতে সর্বাধিক ৫০ জন উপস্থিত থাকতে পারবেন।
১০. ব্যাংক এবং এটিএম খোলা থাকবে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর দুটো পর্যন্ত।
১১. ধর্মীয় এবং রাজনৈতিক সমস্ত সমাবেশ বন্ধ থাকবে।
১২. স্বাস্থ্য ক্ষেত্র এবং চিকিৎসাতে সমস্ত রকম ছাড় দেওয়া হবে।
১৩. নাইট কার্ফু জারি করা হবে রাত ৯ টার পর।
১৪. চা বাগানের সর্বাধিক ৫০% কর্মী উপস্থিত থাকতে পারবেন।
১৫. চটকলে সর্বাধিক ৩০% কর্মী উপস্থিত থাকতে পারবেন।