বিয়ে বাড়িতে মাংস কম পাওয়ায় বরযাত্রীরা শুরু করলেন ভাঙচুর, বাধ্য হয়ে বিয়ে ভেঙে দিল কনে

বিয়ে বাড়িতে মাংস কম পাওয়ায় বরযাত্রীরা শুরু করলেন ভাঙচুর, বাধ্য হয়ে বিয়ে ভেঙে দিল কনে


বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া এমন একটি প্ল্যাটফরম যা নিমেষের মধ্যেই বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের খবর আমাদের কাছে পৌঁছে দেয়। খবরের পাশাপাশি মনোরঞ্জন প্রদানেও বেশ বড় ভূমিকা গ্রহণ করে এই সোশ্যাল মিডিয়া। প্রত্যেকদিনই নানান ধরনের খবর ভাইরাল হতে দেখা যায় এখানে। বর্তমানে উঠে আসা খবরটি একটি বিয়ে বাড়ির সেখানে মাংস কম পাওয়ায় অশান্তি শুরু করেছিলেন বরযাত্রীরা এবং সেই দেখে শেষমেশ বিয়ে ভাঙতে বাধ্য হলেন কোনে।

আরো পড়ুন -  ছেলেকে পড়াশুনার জন্য বিক্রি করেছিলেন বাড়ি, ছেলে IPS অফিসার হয়ে সেই বাড়ি কিনে উপহার দিল বাবাকে

বিয়ে বাড়িতে খেতে বসে মাংস কম পড়লে সকলেরই একটু অভিমান হয়। কিন্তু এবারের ঘটনাটি একটু আলাদা। বিয়ে বাড়িতে খেতে বসে পাতে মাংস কম পড়ায় হাতাহাতি শুরু করেন বরযাত্রীরা। কিছু সময় পর দুই পক্ষই মিটমাটের সিদ্ধান্তে আসেন। কিন্তু হঠাৎই নারাজি জানান কনে। সকলের সামনে কনে জানিয়েছে যে সামান্য বিষয় নিয়ে যে পরিবারের লোকজন এত বড় কাণ্ড ঘটিয়ে দিলো সেই পরিবারের ছেলের সঙ্গে সংসার করতে পারবেন না তিনি।

আরো পড়ুন -  দরকার হল না কোনো পুরুষ সঙ্গীর, অনলাইনে গর্ভবতী হলেন এই মহিলা, জন্মালো প্রথম ‘ই-বেবি’গার্ল

কনের সিদ্ধান্তকে আত্মীয়-স্বজন থেকে শুরু করে অনুষ্ঠান বাড়িতে উপস্থিত অনেক লোকই সমর্থন করেন। তাদের প্রতিবেশী গিয়াসউদ্দিন জানিয়েছেন যে মেয়েটি একদম ঠিক কাজ করেছেন। স্থানীয় পঞ্চায়েতের একজন কর্মদক্ষ সাবিরউদ্দিন আহমেদ পরিবারটির সঙ্গে দেখা করেন এবং তিনি মেয়েটির সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে পাশে থাকার দাবি করেন। কনের মত অনুসারে যে সমস্ত বাড়ির লোক সামান্য মাংসের জন্য তুমুল অশান্তির সৃষ্টি করলো তাদের বাড়ির বউ হয়ে যাওয়ার পর জানিনা তারা কি করবে।

আরো পড়ুন -  ‘টাটা মোটর’-এর বাম্পার অফার, মাত্র ৩৫৫৫ টাকায় পেয়ে যাবেন আস্ত একটা টাটা টিয়াগো গাড়ি

ঘটনাটি ঘটেছে গোলসি বামুনারা গ্রামে। বরের নাম সায়ন মণ্ডল। গোলসির একটি মসজিদে বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছিল তাদের। প্রায় 70 জন বরযাত্রী নিমন্ত্রিত ছিলেন সেই বিয়েতে। ঝামেলার সৃষ্টি হওয়ায় শেষ পর্যন্ত বিবাহ সম্পন্ন হলো না তাদের। স্থানীয় প্রশাসন সেখানে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন এবং কিছু জনকে হাজত বন্দি করেন।