নারীদের মধ্যে এই লক্ষণের কারনে জমজ সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, গবেষণায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

নারীদের মধ্যে এই লক্ষণের কারনে জমজ সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, গবেষণায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

মা হবার অনুভূতি যেন এক স্বর্গ সুখের সমান। তাই মাতৃত্বের স্বাদ কে অনুভব করতে চায় সকল মেয়েই। কিন্তু সন্তান যদি হয় যমজ, তাহলে আনন্দ যেন দ্বিগুন হয়ে যায়। প্রতিটি মহিলার মনেই কৌতুহল জাগে যে তার একটি সন্তান হবে না দুটি। বেশকিছু লক্ষণ এর উপর ভিত্তি করে বলা যায় যে যমজ সন্তান হবে কিনা।

1980 থেকে 2009 সাল পর্যন্ত 76 শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে যমজ সন্তান জন্মানোর সংখ্যা। 1980 সালের পরিসংখ্যান অনুসারে লক্ষ্য করা গিয়েছে যে প্রত্যেক 53 জন শিশুর মধ্যে একজন যমজ শিশু লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু 2009 সালের জনগণনা অনুসারে দেখা গিয়েছে যে এই জন্মের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে 30 জনের মধ্যে একটি যমজ শিশুতে। বর্তমানে “জার্নাল অফ রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন” নামক সংস্থা গবেষণা করছেন যমজ সন্তান প্রসবকারী মহিলাদের উপর।

জার্নাল অফ রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন এই গবেষণার মাধ্যমে এমন এক চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এনেছে যা আপনি শুনলে হয়তো অবাক হয়ে যাবেন। গবেষণার মাধ্যমে সামনে এসেছে যে যমজ সন্তান প্রসবের সবচেয়ে বেশি সম্ভাবনা মহিলার উচ্চতার ওপর নির্ভর করে। মায়ের উচ্চতাই সবথেকে বড় ফ্যাক্টর যমজ সন্তান প্রসবের ক্ষেত্রে।

যমজ সন্তান জন্মের ক্ষেত্রে মায়ের উচ্চতা সবচেয়ে বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে গবেষণার মাধ্যমে। মহিলাদের উচ্চতা বৃদ্ধির পিছনে মূল কারণ গ্রোথ ফ্যাক্টর। ইনসুলিন নামক একটি হরমোন গ্রোথ ফ্যাক্টরে মূল ভূমিকা গ্রহণ করে। ইনসুলিন ক্ষরণের উপরেই নির্ভর করে মহিলাদের উচ্চতা বৃদ্ধি।