জেলে খেতে হবে সাধারণ খাবার, শাহরুখ-পুত্র আরিয়ানের জন্য থাকছে না কোনো এলাহী ব্যবস্থা

জেলে খেতে হবে সাধারণ খাবার, শাহরুখ-পুত্র আরিয়ানের জন্য থাকছে না কোনো এলাহী ব্যবস্থা


এনসিবি-র হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর শাহরুখ খান (Shahrukh Khan)-এর পুত্র আরিয়ান খান (Aryan Khan)-কে 7 ই অক্টোবর পর্যন্ত জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। শোনা যাচ্ছে, তদন্তে সাহায্য করছেন আরিয়ান। কিন্তু বদলে গিয়েছে তাঁর জীবন ও খাদ্যাভ‍্যাস।

শৈশব থেকেই বিলাসবহুল বাংলো ‘মন্নত’-এ বেড়ে উঠেছেন আরিয়ান। রাজকীয় মন্নত থেকে জেলের গরাদের অন্দরে তাঁকে পৌঁছে দিল কর্ডেলিয়া প্রমোদতরীর এক অভিশপ্ত রাত। বলিউডের বেতাজ বাদশা শাহরুখ খানের পুত্র এই মুহূর্তে জেলের একজন সাধারণ কয়েদি ছাড়া আর কিছুই নয়। জেলের মধ্যে তাঁর জন্য নেই কোনো আলাদা ব্যবস্থাও। এনসিবি-র মেসে তৈরি সাধারণ খাবার খাচ্ছেন আরিয়ান। বাড়ি থেকে খাবার আনতে আদালতের বিশেষ অনুমতি প্রয়োজন যা তাঁকে দেওয়া হয়নি। কিন্তু আরিয়ান সম্ভবত এইসব নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন না। কারণ তিনিও এই মুহূর্তে মাদক কান্ডের জাল থেকে মুক্তি পেতে সক্রিয় হয়ে উঠেছেন।

এনসিবি সূত্রে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, আরিয়ান চার পাতার একটি বিবৃতি নিজের হাতে লিখে দিয়েছেন। এমনকি শোনা যাচ্ছে, তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকদের সাথে নৈশ তল্লাশিতে বেরোতে পারেন তিনি। অপর দিকে মাদক কান্ডে জড়িত আব্দুল কাদের শেখ (Abdul Kader sheikh), শ্রেয়স নায়ার (Shreyas Nayar), মণীশ দারিয়া (Manish Daria) এবং অভিন শাহু (Avin Shahoo)-কে 11 ই অক্টোবর পর্যন্ত এনসিবি-র হেফাজতে রাখা হবে। কর্ডেলিয়ার রেভ পার্টির চারজন আয়োজককেও এই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

শনিবার কর্ডেলিয়া রেভ পার্টি থেকে আরিয়ান সহ মোট আট জনকে আটক করা হয়েছিল। আরিয়ানের লেন্স বক্সে মাদক মিলেছে। জেরার মুখে মাদক নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন আরিয়ান। এনসিবি-র হাতে এসেছে আরিয়ানের মোবাইল। তাঁর হোয়্যাটসঅ্যাপ চ্যাটও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরো পড়ুন -  ভবিষ্যতে বদলে যাবে সম্পর্কের সমীকরণ, ‘টেস বুড়ি’ হতে পারেন মোদক বাড়ির বড়-বৌ!