নেটিজেনদের প্রতীক্ষার অবসান, জোরকদমে চলছে রাণু মন্ডলের বায়োপিক তৈরির কাজ !

নেটিজেনদের প্রতীক্ষার অবসান, জোরকদমে চলছে রাণু মন্ডলের বায়োপিক তৈরির কাজ !

সঙ্গীতজগতের পর এবার সিলভার স্ক্রিনে রাণু মন্ডল (Ranu Mondal)। না, তিনি অভিনয় করছেন না। কিন্তু তাঁর জীবন নিয়ে তৈরি হতে চলেছে বায়োপিক যার পরিচালনা করছেন হৃষিকেশ মন্ডল।

রাণুর বায়োপিকের নাম হতে চলেছে ‘রাণু মারিয়া’। রাণাঘাটের বাসিন্দা রাণু। সেখানেই হতে চলেছে তাঁর জীবনকাহিনীর শুটিং। ফিল্মে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন ইশিকা দে (Eshika Dey)। এর আগে কয়েকটি হিন্দি ফিল্মে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইশিকা। এই প্রথম তিনিও নায়িকার ভূমিকায়। তবে প্ল্যাটফর্ম সিঙ্গার থেকে রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে যাওয়া রাণুর চরিত্র পর্দায় ফুটিয়ে তোলা তাঁর কাছে যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং। প্রথমে এই চরিত্রে সুদীপ্তা চক্রবর্তী (Sudipta Chakraborty)-র কথা ভাবা হলেও তিনি রাজি হননি। ফলে তাঁর স্থানে আসেন ইশিকা।

অপরদিকে আপাতত এক সপ্তাহের জন্য রাণাঘাটে রয়েছেন হৃষিকেশ। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাণুর জীবনযাপনের প্রতিটি মুহূর্তের খুঁটিনাটি জানতে মরিয়া তিনি। তার সঙ্গেই চলছে নিয়মিত রাণাঘাট স্টেশন ভিজিট। ইশিকাও প্রতিনিয়ত মুম্বই থেকে ভিডিও কলের মাধ্যমে রাণুর হাঁটা-চলা, কথা বলার ভঙ্গি, প্রতিদিনের কর্মকান্ড পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে অনুসরণ করছেন। অভ্যাস করছেন রাণুর গান গাওয়ার স্টাইল। এমনকি রাণুর মানসিক অবস্থা ফুটিয়ে তুলতে মনোবিদের পরামর্শ নিচ্ছেন তিনি।

‘রাণু মারিয়া’ ফিল্মের শুটিং লোকেশন হিসাবে বাছা হয়েছে রাণুর বাড়ি, রাণাঘাট স্টেশনের চার নম্বর প্ল্যাটফর্মের মতো স্থানকে। এমনকি এই ফিল্মে ইশিকা তথা রাণুর মেন্টর হিসাবে ক্যামিও চরিত্রে দেখা যাবে হিমেশ রেশমিয়া (Himesh Reshmiya)-কেও।

কিন্তু কেন জানিনা মনে হচ্ছে, ‘রাণু মারিয়া’ ফিল্মের মাধ্যমে বক্স অফিসে কিছু টাকা আয় হবে। কিছু লোকের পকেট ভরবে। কয়েকদিন সবাই আবারও রাণুকে নিয়ে চর্চা করবেন। হয়তো বা সোশ্যাল মিডিয়ায় অযথা ট্রোল হবেন রাণু। কিন্তু আবারও তিনি সেই তিমিরেই থেকে যাবেন, যেখান থেকে তিনি বারবার বেরোনোর জন্য সংগ্রাম করেছেন।