Alia-Mahesh: আলিয়ার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মহেশ ভাট, মেয়েকে দিলেন বিশেষ বার্তা!

Alia-Mahesh: আলিয়ার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মহেশ ভাট, মেয়েকে দিলেন বিশেষ বার্তা!


করণ জোহরের ‘স্টুডেন্ট অব দ্যা ইয়ার’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে (Bollywood) জয়যাত্রা শুরু করেন আলিয়া (Alia Bhatt)। মহেশ ভাটের (Mahesh Bhatt) ছোটো মেয়ে যে আজ এতো দূর এসে পৌঁছাতে পারবেন তা তখন হয়তো কেউ কল্পনাও করতে পারেননি। কিন্তু আলিয়া জীবনের প্রতিটা মাইলফলক পেরিয়ে সাফল্য অর্জন করেছেন অনেক অল্প বয়সেই। যে কোনও চরিত্রেই আলিয়া একদম ফিট।

আলিয়ার বাবা মহেশ ভাট বিগত দু’দশক ধরে বলিউডে ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের হিট ছবি উপহার দিয়েছেন। বলিউডের অন্যতম বিতর্কিত পরিচালক মহেশ ভাটকে নিয়ে নানার সময়ে নানান সমালোচনা চললেও কোনও কিছুই তার ক্যারিয়ারে দাগ কাটতে পারেনি। মহেশ ভাট ‘আশিকি’, ‘রাজ’, ‘জখম’, ‘অর্থ’, ‘মার্ডার’, দিল হ্যায় কে মান তা নেহি’, ‘সড়ক’, ‘সারাংশ’-এর মতো জমজমাট ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। তবে, ছোটো মেয়ে আলিয়ার ব্যাপার মহেশ ভাট খুবই গর্বিত। সন্তানদের মানুষ করার পিছনে বাবা-মাকে কতোখানি আত্মত্যাগ থাকে তা তিনি অনায়াসে স্বীকার করেন।

আরো পড়ুন -  ফুলসজ্জার রাতে শ্রীময়ীর সাথে অন্তরঙ্গ সময় কাটাচ্ছেন রোহিত সেন! ভাইরাল ভিডিও

মহেশ ভাটের কথায়, তার ছোটো মেয়ে আলিয়া স্বতন্ত্রভাবে নিজের পরিচয় নিজেই গড়ে নিয়েছেন। বরং সে বাবা মায়ের পরিচয়কে ছাপিয়ে গেছে। আর এটা নিয়ে মহেশ ভাট গর্বিত। মহেশ ভাট আরও জানান, “আমাদের পরিচিতিকে ছাপিয়ে গিয়েছে আলিয়া। নিজের পরিচয় দেওয়ার সময় আর ওকে আমাদের পরিচয় দিতে হয় না। আলিয়ার মধ্যে আগুন আছে। আমি ফিল্মমেকার হওয়া সত্ত্বেও ইন্ডাস্ট্রি থেকে একটু দূরেই থেকেছি বরাবর। আমাদের বাড়িতে ঘনঘন পার্টি হত না। সংসার চালানোর জন্য ছবি তৈরি কাজ শুরু করেছিলাম আমি। এসবই দেখে বড় হয়েছে আলিয়া। খুবই সাধারণ বাচ্চার মতোই ও বড় হয়েছে। একাগ্রতা নিয়ে কাজ করে ও। অন্যদের প্রতিও ওর সহানুভূতি তৈরি হয়েছে”।

আরো পড়ুন -  নিক-প্রিয়াঙ্কার বিবাহ বিচ্ছেদ! ভবিষ্যৎ বাণী করলেন অভিনেতা কমল রাশিদ খান

মহেশ ভাট মেয়ে আলিয়ার সম্পর্কে বলেন, “সারা বিশ্বে ছড়িয়ে আছে দর্শক। ফলে একজন পারফরমার হওয়া সহজ কথা নয়। ফলে যাঁরা ছবি তৈরি করেন, তাঁদের জন্য আমার সম্মান অনেক বেশি। অনেক প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়ে যেতে হয় একজন ছবির নির্মাতাকে। ছোট বয়সে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছে যাওয়া আরও বেশি কঠিন বিষয়। আমার মনে আছে, আলিয়া একদিন আমার পায়ের পাতায় ৫০০ টাকা দামের ক্রিম লাগিয়ে দিচ্ছিল। পরের বছরই ও এত রোজগার করল, যা ৫০ বছরে আমি একজন নির্মাতা হয়ে রোজগার করে উঠতে পারিনি”। মেয়ে আলিয়াকে নিয়ে গর্ব বোধ করেন বাবা মহেশ ভাট। আলিয়াকে তিনি পরিচালনা করেছিলেন ‘সড়ক ২’ ছবিতে। আলিয়ার পরবর্তী ছবি ‘গাঙ্গুরাম কাঠিয়াওয়াড়ি’, আর আর আর’, ‘রকি অর রানী কি প্রেম প্রেম কাহানি’, ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ ছবিতে তাকে দেখা যাবে।

আরো পড়ুন -  বাস্তব জীবনেও বৌদি প্রেমে মগ্ন ‘আলো ছায়া’ সিরিয়ালের আকাশ! শীঘ্রই বাজবে বিয়ের সানাই