অরুণিতার সুরের জাদুতে মুগ্ধ সবাই! গায়িকার ইমেল জুড়ে শুধুই বিয়ের প্রস্তাব

অরুণিতার সুরের জাদুতে মুগ্ধ সবাই! গায়িকার ইমেল জুড়ে শুধুই বিয়ের প্রস্তাব

ইন্ডিয়ান আইডল প্রতি সিজনের মত এবারে ১১ তম সিজনেও এনে দিয়েছে একঝাঁক তরুণ প্রতিভাকে। তেমনই এক কণ্ঠ হলো বনগার মেয়ে অরুনিতা। এক সময় বাংলার সারেগামাপা লিল চ্যাম্প থেকে উঠে আসা মেয়েটা এখন দেশের জনপ্রিয় সিঙ্গার দের মধ্যে অন্যতম। ইন্ডিয়ান আইডলের দৌলতে তার যাত্রা হয়েছে বিদেশেও। সেই অরুনিতার সোশ্যাল মিডিয়া নাকি ভরে উঠছে বিয়ের প্রস্তাবে।

ইন্ডিয়ান আইডল সিজন ১১ র মঞ্চে অডিশনে “এরী পাওয়ান” গান শুনে তার গলার প্রেমে পড়েছিলেন সঙ্গীতপ্রেমী মানুষেরা। তার পর একে একে লতা মঙ্গেশকর থেকে শ্রেয়া ঘোষাল সকলের গান গেয়ে বিচারক, নেটিজেন দের মনে জায়গা করে নেয় অরুনিতা। মঞ্চে দীপিকা পাড়ুকোন একটা সেলফি তুলতে চেয়েছিলেন তার সঙ্গে, আশা ভোঁসলে বলেছিলেন কেউ রুখতে পারবে না এই মেয়েকে। এমন পাওনা পেয়ে মেয়ের গর্বে গর্বিত তার বাবা মা।অফার পেয়েছেন সঙ্গীত পরিচালকদের কাছ থেকে প্লে ব্যাক করার। মায়ের ইচ্ছায় আর সকলের শুভেচ্ছায় অরুনিতা এগিয়ে যাচ্ছে সামনের দিকে।

গান দিয়ে তো শ্রোতাদের মন ভরিয়েছেন ১৮ বছরের অরুনিতা। আবার জাজেস দের কাছে সে ছিল অভিনেত্রীও। মঞ্চে জ্যাকি শ্রফ, রেখাজির সঙ্গে নাচ অরুনিতাকে গায়িকার সঙ্গে সঙ্গে নায়িকাও বানিয়ে দিয়েছে। এবার সুন্দরী অরুর প্রোফাইল জুড়ে প্রশংসার সাথে আসছে বিয়ের প্রস্তাব ও। অনেকেই লিখছেন, গানের সঙ্গে তার রূপের প্রেমেও পড়েছেন তারা।

অরুনিতার সামনে এখন উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ। জীবনে সুর তাল লয় নিয়ে অনেক দূর এগিয়ে যেতে চায় এই শহরতলীর মেয়েটা। আর তার কাছে অনুগামীদের চাওয়াও অনেক বেশি। অনেকেই খুশি নন পবনদ্বীপ জয়ী হওয়ায়, তাদের কাছে বিজয়িনী স্মিতভাষী অরুনিতা।