‘মুসলমান না হয়ে হিন্দু হলে রাজি ছিলাম’, যুবতীর মন্তব্যে পাল্টা জবাব রাজ চন্দ্রের

‘মুসলমান না হয়ে হিন্দু হলে রাজি ছিলাম’, যুবতীর মন্তব্যে পাল্টা জবাব রাজ চন্দ্রের


জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক করুণাময়ী রানী রাসমনির (koruna mohi Rani rashmoni) দৌলতে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছেন গাজী আব্দুল (Gazi Abdul Noor)। সেখানে অভিনেতাকে দেখা গিয়েছিল রানী রাসমণির স্বামীর চরিত্রে অভিনয় করতে। সেই সময়ে তার অভিনয়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন বাংলার দর্শকেরা। তবে রাণীমার স্বামী রাম চন্দ্রের জীবন অবসান ঘটেছে বেশ কয়েক বছর হল। তারপরে ধারাবাহিকের গল্প এগিয়েছে। এখন রানী মায়েরও জীবনাবসান হয়েছে সেই ধারাবাহিকে। জীবনাবসান হয়েছে রানী রাসমনির মথুরা মোহন এর।

এখন রাণীমার স্বামী গাজী আব্দুল এর মনে প্রেম জেগেছে। যদিও এখন বসন্তকাল নয় তবুও বসন্তের ছোঁয়া লেগেছে তার। হরমোন গুলো একটু নড়েচড়ে বসতে প্রেম করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন রানীমার স্বামী। এই ইচ্ছা প্রকাশ করে মঙ্গলবার গাজী আব্দুন নূর সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেছেন, “একখান ইটিশ-পিটিশ প্রেম করতে মন চায়…” এই পোষ্টের নিচে কমেন্ট করেছেন এক নেটিজেন যার সূত্র ধরে বেজায় চটেছেন রাণীমার স্বামী।

আরো পড়ুন -  আচমকাই রাত ২টোর সময় বেজে ওঠে ফোন, স্মিতা পাতিলের সঙ্গে অমিতাভের সেই রহস্যময় রাতে কি হয়েছিল জানেন?

গাজী আব্দুন নূর এক সময় সাক্ষাৎকারের প্রেম ভেঙে যাওয়ার প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘‘২০১৫ তে ব্রেক আপের সময় নিজের হাতে মাথা মুড়িয়ে প্রতিজ্ঞা করেছি, সব করব প্রেম করব না। আর ওই পথ মাড়াই? যাচ্ছেতাই গিয়েছে দিনগুলো। কী ভাবে শুট করতাম আর তার পর কী ভাবে ভেঙে পড়তাম, বন্ধুরা জানেন।’’ প্রকাশ্যে প্রেমের প্রস্তাব চান এমন পোষ্ট করেই এক অনুরাগীর ওপর বেজায় চলেন তিনি।

আরো পড়ুন -  বলিউডের সুন্দরী অভিনেত্রীরা মেকাপ ছাড়া বাস্তবে যেমন দেখতে

‘মুসলমান না হয়ে হিন্দু হলে রাজি ছিলাম’, যুবতীর মন্তব্যে পাল্টা জবাব রাজ চন্দ্রের

সেই অনুরাগী রামচন্দ্রের কমেন্ট বক্সে লেখেন,, “মুসলিম না হয়ে হিন্দু হলে রাজি ছিলাম।” এই কমেন্টের প্রত্যুত্তরে অভিনেতা জানিয়েছেন, “প্রেম তো অনেক দূরের কথা!! এমন মানসিকতার লোক আমার প্রোফাইলেও রাখতে চাইনা….” আজ ২১ শতাব্দীর বুকে দাঁড়িয়েও চোখে পড়ে বিভিন্ন ধর্মের মধ্যে প্রেম ও বিয়ের এই রূপ গোঁড়ামি। প্রায় সব ঘরেই হয়ে আসছে এমনটাই। প্রেম দেখেনা জাতি বর্ণ ধর্ম। কিন্তু বাস্তব যে অন্য কথা বলছে সব সময়। অনেক সময় দেখা গেছে ভিন্ন ধর্মে বিয়ে করে কেউ কেউ যেমন সুখী হয়েছেন আবার অনেকেই হেঁটেছেন ধর্মান্তরের পথে। দুই ধর্মের মানুষের মধ্যে ঈশ্বর উপাসনা থেকে শুরু করে খাওয়া-দাওয়া এবং লাইফস্টাইল সবেতেই রয়েছে আকাশ-পাতাল ফারাক। তবে অনেকেই মানিয়ে নিয়েছেন এই ফারাক।

আরো পড়ুন -  ভাত-কাপড়ের অনুষ্ঠান ঘরোয়াভাবে পালন করলেন রাজা-মাম্পি, শুভেচ্ছা ভরিয়ে দিলেন নেটিজেনরা