‘পটকা’ যতটা দিয়েছে ততটা কেড়েও নিয়েছে, মন খারাপের কথা শোনালেন অম্বরীশ ভট্টাচার্য

‘পটকা' যতটা দিয়েছে ততটা কেড়েও নিয়েছে, মন খারাপের কথা শোনালেন অম্বরীশ ভট্টাচার্য

স্টার জলসার জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘খড়কুটো’-র দৌলতে ‘পটকা চরিত্রটি ঘরে ঘরে পরিচিত। কিন্তু পটকার চরিত্রাভিনেতা অম্বরীশ ভট্টাচার্য (Ambarish Bhattacharya) ভার্সেটাইল অভিনেতা হিসাবে আগেই পরিচিত। অম্বরীশ জানিয়েছেন, পটকা চরিত্রটি তাঁকে যেমন অনেক কিছু দিয়েছে, তেমনি অনেক কিছু কেড়ে নিয়েছে।

‘খড়কুটো- র পটকা চরিত্রে অভিনয় না করলে অম্বরীশকে দেখা যেত সৃজিত মুখার্জি (srijit Mukherjee) পরিচালিত ওয়েব সিরিজ ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি’-তে। অম্বরীশ জানিয়েছেন, ‘উইন্ডোজ’-এর ‘ফাটাফাটি’-র শুট সম্পূর্ণ হয়ে যেত। কিন্তু প্রায় সারা মাসটাই ‘খড়কুটো’-র পটকা সেজে কাটছে তাঁর। তবে ‘ফাটাফাটি’-র পরিচালক শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় (Shibaprashad Mukherjee) বলেছেন, অম্বরীশ ছাড়া ‘ফাটাফাটি’ সম্পূর্ণ হবে না। তবে অম্বরীশ কিন্তু এই ঘটনা নিয়ে আফশোস করেন না। তিনি বলেছেন, ধারাবাহিক তাঁকে অন্নসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিয়েছে। তাই লীনা গঙ্গোপাধ্যায় (Leena Ganguly) ও দর্শকদের কাছে তিনি কৃতজ্ঞ। তাঁর কথায়, কিছু পেতে গেলে কিছু ছাড়তে হয়।

অপরদিকে ‘শ্রীময়ী’-তে আবারও ফিরছেন অম্বরীশ। ধারাবাহিক শুরুর প্রথম তিন মাস শ্রীময়ীর ভাই দীপুর চরিত্রে অম্বরীশ ছিলেন নিয়মিত। দীপু শ্রীময়ীর পিঠোপিঠি ভাই। শৈশব থেকে একসঙ্গে বড় হয়েছে। শ্রীময়ীর শ্বশুরবাড়ির খারাপ ব্যবহারে ভাই-বোনের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু এতটুকুই। এরপরেই ধারাবাহিক থেকে রাতারাতি উধাও হয়ে গিয়েছিলেন দীপু ওরফে অম্বরীশ। প্রকৃতপক্ষে, সেটা 2019 সাল, তাঁর জীবনের ব্যস্ততম বছর যখন তিনি প্রায় এক ডজন ফিল্মে অভিনয় করছেন। ফলে টেলিভিশনে সময় না দিতে পারায় দীপু চরিত্রটি সাময়িক ভাবে অফ রাখা হয়েছিল। তবে এবার দীপু ফিরছে।

রোহিত সেনকে বিয়ে করতে চলেছে শ্রীময়ী। তার সিদ্ধান্ত কতটা সঠিক তা আলোচনার জন্যই সে ডেকে পাঠিয়েছে দীপুকে। 13 ই অগস্ট থেকে দীপু ও পটকার টেক্কা শুরু হচ্ছে। পটকা চরিত্রটিতে কমেডি রয়েছে। কিন্তু দীপু একদম উল্টো। অম্বরীশ জানালেন, একটানা পটকা চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে তাঁর মনে হচ্ছিল, চরিত্রের সাথে অন্যায় করছেন না তো! কিন্তু দীপু তাঁকে বাঁচিয়ে দিল।

অভিনয়ের পাশাপাশি একটি বিজ্ঞাপনী চরিত্রে প্রচুর সোনার গয়না পরে অম্বরীশ ‘বাপ্পী লাহিড়ী’ সেজে ‘সোনার হরিণ’ রবীন্দ্রসঙ্গীতটির দু’কলি গেয়েছেন। তবে অবশ্যই তিনি নিজের গলায় গান গেয়েছেন। শুধু অভিনেতা নন, অম্বরীশ একজন ভালো গায়ক। তবে আপাতত শ্রীময়ীর বিয়ে নির্বিঘ্নে হোক, এটাই চায় দীপু। তাই দিদির পাশে থাকতে সে আসছে।